গীতবিতান-GITABITAN
নূপুর বেজে যায় রিনিরিনি

Painting

রচনা পরিচিতি
রচনাকাল:  চৈত্র ১৩৩২ (১৯২৬)
কবির বয়স: ৬৪
প্রকাশ: আষাঢ় ১৩৩৩ , বৈকালী, প্রবাসী |
বৈকালী (১৩৮১)
গীতবিতান(পর্যায়;#/পৃ): প্রেম-প্রেমবৈচিত্র্য; ১০৫/৩১৩
রাগ / তাল: কেদারা / কাহারবা
স্বরলিপি: সঙ্গীতবিজ্ঞান প্রবেশিকা (১৩৩৪); স্বরবিতান ৩
স্বরলিপিকার: রমা মজুমদার; দিনেন্দ্রনাথ ঠাকুর
পাদটিকা:
সম্ভবত ১২ থেকে ১৬ চৈত্রের মধ্যে রচিত। প্রচলিত ও [ স্বর ৩] ১ম সং-এর (১৩৪৫) মধ্যে সুর/ছন্দোভেদ আছে।  

আলোচনা

তিনি আমাদের মণিপুরী নাচের জন্য রচনা করলেন গান--
    নূপুর বেজে যায় রিনিরিনি

এই গানটিতে নবকুমার ঠাকুর [শান্তিনিকেতনের তৎকালীন নৃত্যশিক্ষক] মণিপুরী নাচ বসিয়ে আমাদের শেখালেন। গানের কলিতে কলিতে এমন সুন্দর নাচের ছন্দ গাঁথলেন, মনে হল এই গানটির জন্য আগে থাকতেই যেন নাচ তৈরি করা ছিল।

এই মণিপুরী নৃত্য শেখা থেকেই গানের প্রথম লাইন থেকে শেষ লাইন পর্যন্ত হাত ধরে আমাদের নাচ শেখানো-- গুরুদেবের, ধীরে ধীরে ক্ষীণ হতে শুরু করল। শেষ দিন পর্যন্ত তাঁরই নির্দেশনায় সব নাচ তৈরি হয়েছে, কিন্তু তিনি বসে বসে আমাদের বুঝিয়ে দিতেন, প্রয়োজনে উঠে দেখাতেনও কিন্তু সম্পূর্ণ নাচটিতে গোড়া থেকে শেষ পর্যন্ত তাঁকে পাশে পাশে পাওয়ার সৌভাগ্য ক্রমে ফুরিয়ে এল।    
     --অমিতা সেন, নৃত্যরচনায় রবীন্দ্রনাথ, শারদীয় যুগান্তর, ১৩৮৮  



রবীন্দ্রনাথ নিজে আমাদের তিনটি গান শিখিয়েছিলেন -- ' নূপুর বেজে যায় ', ' দিনের বেলায় বাঁশি তোমার ', আর ' আধেক ঘুমে নয়ন চুমে '। ... তখন ভাবিনি ভবিষ্যতে এই গান শেখা আমার জীবনে অবাধ হয়ে দেখা দেবে।

সেবার তাঁর সঙ্গে নাতনী বুড়ী (নন্দিতা) ছিল। বুড়ী তখন বেশ ছোট। রবীন্দ্রনাথ চলে গেলে নিজের মনেই বলছিল -- দাদামশায়ের গানের কথা বোঝা ভার। নয়নে আবার চুমো খায় নাকি কেউ?  
     --শৈলজারঞ্জন মজুমদার, যাত্রাপথের আনন্দগান, আনন্দ পাবলিশার্স, কলকাতা ১৯৮৫  


 

 

১০৫

         নূপুর বেজে যায় রিনিরিনি।
                আমার মন কয়, চিনি চিনি॥
গন্ধ রেখে যায় মধুবায়ে     মাধবীবিতানের ছায়ে ছায়ে,
ধরণী শিহরায় পায়ে পায়ে,    কলসে কঙ্কণে কিনিকিনি॥
পারুল শুধাইল, কে তুমি গো,   অজানা কাননের মায়ামৃগ।
কামিনী ফুলকুল বরষিছে,   পবন এলোচুল পরশিছে,
আঁধারে তারাগুলি হরষিছে,    ঝিল্লি ঝনকিছে ঝিনিঝিনি॥

Photo

বিবিধ তথ্য ও আলোচনা

১৯২৬ সনের পশ্চাৎপট:

রবীন্দ্রনাথের জগৎ:  বড়ো দাদা দ্বিজেন্দ্রনাথের মৃত্যু। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমন্ত্রণে ঢাকা গেলেন, বক্তৃতা দিলেন। ইউরোপ ভ্রমণ -- ইটালি, ইংল্যাণ্ড, ডেনমার্ক, সুইজারল্যাণ্ড, ফ্রান্স, নরওয়ে, সুইডেন, জার্মানি, অস্ট্রিয়া, চেকোশ্লোভাকিয়া, হাঙ্গেরি, যুগোশ্লাভিয়া, মিশর। 'লেখন' রচনা। প্রকাশ: চিরকুমার সভা (নাটক), শোধবোধ (নাটক), নটীর পূজা (নাটক), রক্তকরবী (নাটক), ঋতু-উৎসব (গানের সংকলন), গীতমালিকা ১(গীত সংগ্রহ), বৈকালী।

বহির্বিশ্বে: কলকাতায় তিনবার সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা। ট্রেড ইউনিয়ন আইন বিধিবদ্ধ। লেবাননে প্রজাতন্ত্র। ট্রটস্কিকে মস্কো থেকে বিতাড়ন। কোডাক কোম্পানি ১৬ মিমি চলচ্চিত্রের ফিল্ম তৈরি করে। তুরস্কে বিবিধ সংস্কার ও রোমান লিপির প্রচলন। সরোজিনী নাইডুর উদ্যোগে নিখিল ভারতীয় মহিলা সমিতি ও রাসবিহারী বসুর চেষ্টায় জাপানে ইণ্ডিয়ান ইণ্ডিপেন্‌ডেন্স লীগের সূচনা। হিরোহিতো জাপানের সম্রাট। জার্মান কবি রিল্‌কের মৃত্যু।  উল্লেখযোগ্য সাহিত্য: দি অরিজিন অ্যাণ্ড ডেভেলপমেণ্ট অফ বেঙ্গলি ল্যাঙ্গোয়েজ (সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায়), দি সেভেন পিলার্স অফ উইজ্‌ডম (লরেন্স), অ্যারোস্মিথ (লুইস), দি প্লাও অ্যাণ্ড দি স্টার্স (ওকেসি), সিলেক্টেড পোয়েম্‌স (স্যাণ্ডবার্গ), লীভ্‌স অফ গ্রাস (হুইটম্যান)।  
     --প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়, রবীন্দ্রজীবনকথা, আনন্দ পাবলিশার্স, কলকাতা ১৩৯২ এবং  
চিত্তরঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পাদক, রবীন্দ্র-প্রসঙ্গ ৪, আনন্দ পাবলিশার্স, কলকাতা ১৯৯৮  



রবীন্দ্রসঙ্গীতের যা শ্রেষ্ঠ নিদর্শন, সেখানে রবীন্দ্রনাথের রচনা তাঁর সেরা ছবির মতোই সতেজ, সাবলীল ও অননুকরণীয়। এখানে রাগরাগিণীর প্রশ্ন আসে না, বাউল-কীর্তনের প্রশ্ন আসে না, বাদী-সম্বাদীর প্রশ্ন আসে না। এখানে সবটাই আছে, আবার সবই যেন নতুন। এমনকি এখানে কথা ও সুরের সামঞ্জস্যের বিচারটাও অবান্তর বলে মনে হয়, কারণ সব শ্রেষ্ঠ শিল্পরচনার মতোই এ গানও বিশ্লেষণের ঊর্ধ্বে। এসব গানের আদর্শগীতরূপ আজ স্বপ্নের বস্তু হয়ে দাঁড়িয়েছে।  
     --সত্যজিৎ রায়  "রবীন্দ্রসঙ্গীতে ভাববার কথা", এক্ষণ, পঞ্চম বর্ষ, ষষ্ঠ সংখ্যা, ১৩৭৪।